স্বাস্থ্য সাথী অ্যাপ্লিকেশন স্ট্যাটাস 2023 অনলাইন চেক করার পদ্ধতি

WB Swasthya Sathi Application Status Check 2023 – SSC (স্বাস্থ্য সাথী অ্যাপ্লিকেশন স্ট্যাটাস 2023), স্বাস্থ্য সাথী অ্যাপ্লিকেশন স্ট্যাটাস যাচাই করার পদ্ধতি কি? কিভাবে স্বাস্থ্য সাথী স্ট্যাটাস চেক করবেন? স্বাস্থ্য সাথী আবেদনের স্থিতি দেখার পদ্ধতি কি? এবং এই স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্পের আরও তথ্য এখানে দেখুন।

স্বাস্থ্য সাথী কার্ড আমাদের জীবনে কতটা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে এবং করছে সেটা কিন্তু বর্তমানে অনেকেই অনুভব করতে পারছেন। স্বাস্থ্য নিয়ে সকলের চিন্তা থাকে, যদি স্বাস্থ্য সংক্রান্ত কোন কিছু জানার থাকে সেটা অনেকেই আগ্রহের সাথে জানার চেষ্টা করেন, কেননা সু-স্বাস্থ্যই হলো মূল সম্পদ।

তবে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকার স্বাস্থ্য সাথী কার্ড (Swasthya Sathi Card) এর মধ্যে দিয়ে সাধারন মানুষের জীবনে এক অনন্য অধ্যায় শুরু করেছে। যার মধ্যে দিয়ে সর্বোচ্চ ৫ লাখ টাকা পর্যন্ত স্বাস্থ্যবীমা পাবেন প্রত্যেকটি পরিবার।

WB Swasthya Sathi Application Status Check - স্বাস্থ্য সাথী অ্যাপ্লিকেশন স্ট্যাটাস
WB Swasthya Sathi Application Status Check – স্বাস্থ্য সাথী অ্যাপ্লিকেশন স্ট্যাটাস

তাছাড়া এই স্বাস্থ্য সাথী কার্ড সম্পর্কে অনেক বিষয়ে জানার থাকে, যেমন ধরুন আপনি নতুন স্বাস্থ্য সাথী কার্ড এর জন্য আবেদন করেছেন, অথবা স্বাস্থ্যসাথী ইউ আর এন (URN) নাম্বার জেনারেট হয়েছে, তাহলে আপনিও খুব সহজে স্বাস্থ্য সাথীর স্ট্যাটাস চেক (Swasthya Sathi Status Check) করতে পারবেন অনলাইনের মাধ্যমে।

স্বাস্থ্য সাথী কার্ড:

মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রতিনিয়ত কিছু-না-কিছু প্রকল্প নিয়ে আসছেন। আর তার মধ্যে এই স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্প টি হল অন্যতম, যার মধ্যে দিয়ে প্রত্যেকটি পরিবার ৫ লক্ষ টাকা পর্যন্ত চিকিৎসার জন্য আর্থিক সহযোগিতা পাবেন। স্বাস্থ্য সাথী কার্ড এর মাধ্যমে বিনামূল্যে সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে এবং নার্সিংহোমে চিকিৎসা করানোর সুবর্ণ সুযোগ পাবেন।

স্বাস্থ্য সাথী কার্ড এর অনলাইন স্ট্যাটাস চেক করার পদ্ধতি জানার আগে এই স্বাস্থ্য সাথী কার্ড সম্পর্কে আরো অন্যান্য কিছু বিষয় জানা যাক: 

স্বাস্থ্য সাথী কার্ড এর জন্য যে সমস্ত ডকুমেন্টস আপনার প্রয়োজন পড়বে:

প্রত্যেকটি কাজের ক্ষেত্রে যেমন আপনার পরিচয় পত্র, ঠিকানার প্রমাণপত্র, আরো অন্যান্য সরকারি কাগজপত্র যেমন প্রয়োজন পড়ে, তেমনি স্বাস্থ্য সাথী কার্ড এর জন্য বিভিন্ন ধরনের কাগজপত্র আপনার প্রয়োজন পড়তে পারে। যেমন ধরুন:-

স্বাস্থ্য সাথী কার্ড এর আবেদন পদ্ধতি:

স্বাস্থ্য সাথী কার্ড এর জন্য আপনারা কিন্তু দুয়ারের সরকার ক্যাম্পে নতুন করে আবেদন করতেই পারেন, এর জন্য আপনাকে স্বাস্থ্য সাথী ফর্ম বি (Form- B) ফিলাপ করে জমা করতে হবে।

১) সবার প্রথমে স্বাস্থ্যসাথী (Swasthya Sathi) এর অফিশিয়াল ওয়েবসাইটে ভিজিট করতে হবে, https://swasthyasathi.gov.in/

২) এই ওয়েবসাইটের মধ্যে দিয়ে স্বাস্থ্য সাথী ফর্ম বি (Form-B) ডাউনলোড করে সেটা প্রিন্ট আউট করে ফিলাপ করুন, তারপর দুয়ারে সরকার ক্যাম্পে জমা দিয়ে দিন।

স্বাস্থ্য সাথী অ্যাপ্লিকেশন স্টেটাস অনলাইন চেক করার পদ্ধতি:

আপনি স্বাস্থ্য সাথী কার্ড এর জন্য আবেদন করেছেন অথবা আপনার ইউ আর এন (URN) নাম্বার জেনারেট হয়ে গেছে তাহলে “স্বাস্থ্যসাথী স্ট্যাটাস চেক অনলাইন” (Swasthya Sathi Status Check Online) এর জন্য নিচে দেওয়া এক কয়েকটি সহজ পদ্ধতি অবলম্বন করলেই আপনার স্বাস্থ্য সাথী কার্ড এর স্ট্যাটাস দেখতে পাবেন:-

Step 1. সবার প্রথমে স্বাস্থ্যসাথীর অফিশিয়াল ওয়েবসাইটে যেতে হবে, https://swasthyasathi.gov.in/

Step 2. এরপর ড্রপডাউন মেনু তে “ফাইন্ড ইওর নেম” (Find Your Name) এই অপশনে ক্লিক করুন।

Step 3. এরপর একটি নতুন ওয়েব পেজ ওপেন হবে যেখানে আবেদনকারীর মোবাইল নাম্বার দিয়ে ফাইন্ড ইওর নেম (Find Your Name) অথবা ইয়োরসেল্ফ (Yourself) অথবা আদার্স (Others) ক্লিক করে সাবমিট (Submit) বাটনে ক্লিক করুন।

Step 4. আবার একটি পেজ ওপেন হবে সেখানে আপনার রাজ্য (State Name), জেল(District Name), ব্লক (Block Name) এবং মিউনিসিপালিটি নাম (Municipality Name), জিপি (GP Name), গ্রামের নাম (Village Name) সিলেক্ট করুন।

Step 5. এরপর Select By তে আধার কার্ড নাম্বার অথবা খাদ্যসাথী রেশন কার্ড নাম্বার যেকোনো একটি অপশন এ ক্লিক করে নাম্বারটি বসিয়ে সাবমিট বাটনে ক্লিক করুন।

Step 6. সাবমিট বাটনে ক্লিক করার পর যে পেজ ওপেন হবে সেখানে আপনার এবং ওই স্বাস্থ্য সাথী কার্ড (Swasthya Sathi Card) এর সাথে যতগুলো নাম যুক্ত আপনি করেছেন সবগুলো দেখতে পাবেন, মোবাইল, কম্পিউটার অথবা ল্যাপটপের স্ক্রিনে।

স্বাস্থ্য সাথী কার্ড এর সুবিধা:

১) পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের সমস্ত মানুষ বলতে গেলে প্রত্যেকটি পরিবার ৫ লক্ষ টাকার স্বাস্থ্য বীমার আওতায় হাসপাতালে বিনামূল্যে চিকিৎসার সুযোগ পাবেন।

২) পরিবারের যিনি সবচেয়ে বড় মহিলা অথবা সেই পরিবারের একমাত্র মহিলা যিনি রয়েছেন তাঁর নামেই এই স্বাস্থ্য সাথী কার্ড হবে এবং এই কার্ডে পরিবারের আরো অন্যান্য সদস্যদের নিযুক্ত করা হবে অর্থাৎ একটি কার্ডের মাধ্যমে পরিবারের সকলেই বিনামূল্যে চিকিৎসার সুযোগ পাবেন।

৩) শুধুমাত্র পশ্চিমবঙ্গের মধ্যেই নয়, পশ্চিমবঙ্গের বাইরেও এই স্বাস্থ্য সাথী কার্ড এর মাধ্যমে চিকিৎসা করাতে পারবেন।

৪) অনেক ক্ষেত্রে অনেক বড় রোগের জন্য রাজ্যের বাইরে গিয়ে চিকিৎসা করাতে হয়, যেমন ধরুন ভেলোর। সে ক্ষেত্রেও এই স্বাস্থ্য সাথী কার্ড (Swasthya Sathi Card) আপনি ব্যবহার করতে পারবেন।

৫) আবেদনকারী শ্রমিক অথবা দিনমজুর সেটা কোনো গুরুত্বপূর্ণ নয়, এই স্বাস্থ্য সাথী কার্ড এর ক্ষেত্রে।

৬) আবেদনকারী সরকারি কর্মচারী হোক বা না হোক, স্বাস্থ্য সাথী কার্ড এর সকল সুযোগ সুবিধা সম্পূর্ণ রূপে ভোগ করতে পারবেন।

৭) আবেদনকারীর উপার্জন কতটা, সেটা কখনোই দেখা হবে না এই স্বাস্থ্য সাথী কার্ড এর ক্ষেত্রে। শুধুমাত্র এই স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্পের সুবিধা নেওয়ার জন্য সেই পরিবারের স্বাস্থ্য সাথী কার্ড (Swasthya Sathi Card) থাকাটা অবশ্যই প্রয়োজন।

স্বাস্থ্য সাথী কার্ডের জন্য আবেদন করেছেন এবং অনলাইনে তার স্ট্যাটাস চেক করতে পারবেন খুবই সহজে। এছাড়া পরিবারের অন্যান্য সদস্যের নাম থেকে শুরু করে সব কিছু জানতে পারবেন অনলাইনের মাধ্যমে যে সদস্যের নাম স্বাস্থ্য সাথী কার্ড এ আপনি যুক্ত করেছেন।

স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্প পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের প্রত্যেকটি মানুষের জীবনে এক আশীর্বাদ হিসেবে নেমে এসেছে সেটা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। প্রত্যেকটি পরিবার তাদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিয়ে আর বেশি চিন্তিত থাকবেন না আশা করা যায়।

HomeClick here
Official WebsiteClick here

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *