হিন্দু মহিলাদের সম্পত্তির উত্তরাধিকার আইন ও নিয়ম এবং অধিকার

Inheritance rules for Hindu Women: সম্পত্তির ভাগাভাগিতে হিন্দু মহিলাদের ক্ষেত্রে উত্তরাধিকারের নিয়ম কি? হিন্দু মহিলাদের সম্পত্তির উত্তরাধিকার আইনি কি কি অধিকার দেওয়া আছে? উত্তরাধিকার আইনে হিন্দু মহিলাদের অধিকার ও নিয়ম জানুন।

কথায় আছে ছেলে এবং মেয়েদের সমান অধিকার। আর সেই কারণে সম্পত্তির উপরেও কিন্তু একই রকম অধিকার অনেকেই দাবি করেন। তবে আইন অনুসারে ছেলে এবং মেয়েদের সম্পত্তির অধিকার নিয়ে বেশকিছু নিয়ম ও আইন কানুন রয়েছে।

Inheritance rules for Hindu Women - হিন্দু মহিলাদের সম্পত্তির উত্তরাধিকার আইনি
Inheritance rules for Hindu Women – হিন্দু মহিলাদের সম্পত্তির উত্তরাধিকার আইনি

হিন্দু উত্তরাধিকার অধিনিয়ম 1956 অনুসারে মহিলা হিন্দুদের সম্পত্তি বন্টন এর জন্য বেশ কিছু নিয়ম জারি করা হয়েছে।

বাবার সম্পত্তিতে ছেলে মেয়েদের আইনি অধিকার কি? জেনে নিন

১) ধারা 14, একজন হিন্দু মহিলাকে তার সম্পত্তির উপর সম্পূর্ণ অধিকার দেওয়া হয়ে থাকে। যা কিনা পরম্পরা অনুযায়ী হিন্দু কানুন অনুসারে কিছু সময় সীমা পর্যন্ত মালিক হিসেবে রাখা হয়।

২) অধিনিয়ম ধারা 15, তে একজন হিন্দু মহিলার উত্তরাধিকারী যারা রয়েছেন তাদেরকে জানানো গিয়েছে যে, তারা তাদের প্রাপ্ত সম্পত্তি পাওয়ার জন্য সফল হতে পারেন।

৩) অধিনিয়ম এর ধারা 16, তে কোন মহিলার সন্তানদের মধ্যে সেই সম্পত্তি বন্টন করার নিয়ম রয়েছে। সে ক্ষেত্রে যদি সেই মহিলার মৃত্যু হয়ে থাকে তাহলে ও তার উত্তরাধিকারী যারা রয়েছেন তারা সেই সম্পত্তির ভাগীদার হবেন।

বিশেষজ্ঞ উকিলের প্রয়োজন:

নিজের আইনি অধিকার সম্পর্কে বিস্তারিত জানার জন্য একজন বিশেষজ্ঞ উকিলের সাথে যোগাযোগ করুন। উকিল আপনার পরিবার ও ব্যক্তিগত সমস্যা বা আপনার অধিকার গুলি বুঝে আপনাকে সঠিক রাস্তা দেখাবেন। মনে রাখবেন ভালো উকিল বাছাই করা জরুরি।

দাদুর সম্পত্তিতে নাতি-নাতনিদের অধিকার আছে কি? জানুন অধিকার আইন

হিন্দু সাকসেশ অ্যাক্ট 1956 ধারা 16 তে নির্ধারিত নিয়ম অনুসারে একজন হিন্দু মহিলা মৃত্যু শয্যায় তার নামে সম্পত্তি, তার উত্তরাধিকারী দের মধ্যে বন্টন করতে পারবেন।

১) সবার প্রথমে ছেলে এবং মেয়েদের মধ্যে সেখানে যে কোন ছেলে অথবা মেয়ে যারা আগে মারা গিয়েছে তাদের উত্তরাধিকারীদের মধ্যে সম্পত্তি বন্টনের নিয়ম রয়েছে। আর যদি স্বামী বেঁচে থাকেন সেক্ষেত্রে স্বামীর নামেও এই সম্পত্তি বন্টন করা হবে।

২) দ্বিতীয়তঃ স্বামীর উত্তরাধিকারীদের মধ্যে ও সম্পত্তি বন্টন করা হবে।

৩) তৃতীয়তঃ মা এবং বাবার মধ্যে।

৪) তারপর বাবার উত্তরাধিকারী যারা রয়েছেন তাদের মধ্যে, তাছাড়া মায়ের উত্তরাধিকারী দের মধ্যে এই সম্পত্তি বন্টন করা যাবে।

বন্টননামা কি? বন্টননামা কিভাবে তৈরি করা হয়? জানুন সবকিছু

একজন হিন্দু মহিলার উত্তরাধিকারী দের মধ্যে উত্তরাধিকার এবং বন্টনের প্রক্রিয়া:

সম্পত্তি খুবই জটিল বিষয়, সে ক্ষেত্রে একজন দক্ষ ও ভালো মানুষের কাছে যদি না রাখা হয় তাহলে সেই সম্পত্তি শেষ হয়ে যেতে অথবা দখল হয়ে যাওয়ার মুখে পড়তে বেশি দিন সময় নেবে না।

তাই ধারা 15 অনুসারে নির্দিষ্ট উত্তরাধিকারী দের মধ্যে একজন শ্রেষ্ঠ উত্তরাধিকার কে নির্বাচন করা হবে। তার সাথে আরও অন্যান্য উত্তরাধিকারী দের মধ্যে সেই সম্পত্তি বন্টন করা হবে। তবে একজন কে শ্রেষ্ঠ হিসেবে নির্বাচন করা হবে।

আবার যদি সেই মহিলার কোন ছেলে অথবা মেয়ের আগে মৃত্যু হয়ে থাকে, সে ক্ষেত্রে তাদের ছেলে মেয়ে দের মধ্যে ছেলে অথবা মেয়ে দের কাছে সেই সম্পত্তি থাকতে পারে।

সম্পত্তি কেনার আগে এই কাগজপত্র গুলি যাচাই না করলে বিপদ

সে ক্ষেত্রে যদি কোন হিন্দু মহিলার মৃত্যুর পর তার নামের সম্পত্তি পিতা, মাতা অথবা তার স্বামীর নাম হয়ে থাকে। সে ক্ষেত্রে অধিনিয়ম ধারা 8 থেকে 12 অনুসারে হস্তান্তরিত করা হবে। কেননা হিন্দু পুরুষের মামলা অনুসারে উত্তরাধিকারের নিয়ম এটাই। অধিনিয়ম এর ধারা 15 এবং 16 অনুসারে সম্পত্তি মৃত মহিলার মায়ের নামে যা কিনা মেয়ের নামে ছিল না, শুধুমাত্র সময় সীমা পর্যন্ত তার রক্ষণাবেক্ষণে ছিল। মৃত্যুর পর সেটা আবার হস্তান্তরিত করা হয়েছে।

তবে বলা যেতে পারে যে, এমন পরিস্থিতিতে কোনো অভিজ্ঞ উকিলের সাহায্যে হিন্দু মহিলার নামে থাকা সম্পত্তি এইভাবে তার বাবা-মা অথবা নিজের উত্তরাধিকারী যারা রয়েছেন ছেলে মেয়ে, তাদের মধ্যে হস্তান্তরিত করা যেতে পারে।

সম্পত্তি শুধুমাত্র সেই মহিলা যতদিন জীবিত থাকবেন ততদিন তার রক্ষণাবেক্ষণে থাকবে। এবং যদি মৃত্যু হয়ে যায় তারপরে কিন্তু এই হস্তান্তরিত অথবা বন্টন প্রক্রিয়া হতে পারে।

তবে সব দিক বিবেচনা করে সম্পত্তির বিষয়ে সমস্ত রকম তথ্য যোগাড় করার পর, ভালো উকিল এর মাধ্যমে এই সম্পত্তি বিষয়ক সমস্ত রকম কাজকর্ম আইনি ভাবে করাটা বাঞ্ছনীয়।

এক্ষেত্রে হিন্দু মহিলার নামে থাকা সমস্ত রকম সম্পত্তি এর অধিকার থেকে যেন সেই মৃত মহিলার ছেলে মেয়েরাও কখনোই বঞ্চিত না হয়ে থাকে।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *