শনি পূজা 2023: শনি দেবের পূজায় যে ভুলগুলি করলে বিপদে পড়তে পারেন

হিন্দু ধর্মাবলম্বী দের কাছে ৩৩ কোটি দেব-দেবীদের মধ্যে শনিদেব হলেন একজন দেবতা, তাকে সন্তুষ্ট করার জন্য গৃহস্থের বাড়ির মহিলারা বিশেষ করে এই ব্রত পালন করে থাকেন। শাস্ত্রে শনিদেব কে কর্মফল দাতা ও ন্যায়ের দেবতার রূপ হিসেবে ধরা হয়।

ব্যক্তির ভালো-মন্দ কাজের উপর নির্ভর করে তাকে শনিদেব ফলাফল প্রদান করে থাকেন, যদি তিনি শুভ ফল প্রদান করে থাকেন, তাহলে কাউকে গরিব থেকে রাজা বানিয়ে দিতে পারেন কিছুদিনের মধ্যেই।

তেমনি তিনি এটাও পারেন যে, যদি কারোর উপরে তিনি ক্রুদ্ধ হয়ে থাকেন, তাহলে রাজা থেকে ভিখারিও বানিয়ে দিতে তাঁর বেশি সময় লাগবে না। শনিদেবকে সন্তুষ্ট করার জন্য সকলেই কিন্তু নিষ্ঠা ভরে পূজা অর্চনা করে থাকেন, কেউ কখনোই চাইবেন না যে শনিদেবের রোষানলে পড়তে, তাই না !

শনি দেবের পূজায় যে ভুলগুলি করলে বিপদে পড়তে পারেন
শনি দেবের পূজায় যে ভুলগুলি করলে বিপদে পড়তে পারেন

সবাই কমবেশি জানেন যে, শনিদেব কিন্তু খুবই রাগী দেবতা, তাই তাকে সন্তুষ্ট করার জন্য জোগাড় জান্তির এবং নৈবেদ্য নিবেদন করার কমতি নেই, আর শনিদেব যাতে রেগে যান এমন কিছু করাও কিন্তু উচিত নয়, সেই জন্য শনিদেবের পুজোর সময় এমন কিছু বিষয় খেয়াল রাখতে হবে, যার ফলে তিনি যেন আপনার উপরে রুষ্ট না হন। তার পাশাপাশি তিনি যেন আপনার সকল মনের ইচ্ছা পূরণ করেন।

এমন অনেক বিষয় রয়েছে যেগুলি হয়তো আপনি অজান্তেই করে ফেলছেন, তারপরে শনিদেবকে সন্তুষ্ট করার পরিবর্তে রুষ্ট করে ফেলছেন, আর এর জন্য আপনার কোন মনের ইচ্ছা পূরণ হচ্ছে না, যা সামান্য সামান্য কোন ভুলের কারণে।

শনিবার ভুলেও এই কাজগুলি করলে জীবনে নেমে আসবে অমঙ্গল

তো চলুন তাহলে জেনে নেওয়া যাক, শনিদেবের পূজার সময় কোন বিষয় গুলির উপরে আপনাকে বিশেষ খেয়াল রাখতে হবে:

১) ভোগ হিসেবে অর্পণ করুন এগুলি:

শনিদেব এর পূজায় সিন্নি খুবই গুরুত্বপূর্ণ, তবে তার মধ্যে এমন অনেক নৈবেদ্য রয়েছে বা ভোগ রয়েছে যেগুলি শনিদেবের পূজাতে অর্পণ করতে হয়। যেকোনো ভগবানের ভোগ যে কোন জিনিস দিয়ে অর্পণ করা হয়, কিন্তু শনিদেবের ক্ষেত্রে কালো তিল এবং খিচুড়ি দিয়ে ভোগ নিবেদন করতে হয়, তাতে তিনি সন্তুষ্ট হন বলে জানা যায়।

২) শনিদেবের চোখে চোখ রাখবেন না:

প্রতিটি পূজায় মাথা নিচু করে দেবতা দের আশীর্বাদ নেওয়া খুবই পূণ্যের কাজ। অধিকাংশ সময় দেখা যায় যে যখন মানুষজন পূজা করেন তখন ভগবানের চোখে চোখ রেখে মনের ইচ্ছার কথা জানিয়ে থাকেন।

কিন্তু সকল দেব-দেবীদের মত শনিদেবের বিষয়টা কিন্তু অন্যরকম, শনিদেবের চোখে চোখ রেখে কখনো কোনো মানুষ কামনা করা যাবে না, এক্ষেত্রে হাত জড়ো করে মাথা নিচু করে আপনাকে বিশ্বাস অনুসারে শনিদেবের কাছে নিজের মনের কথা বলতে হবে।

বিশ্বাস করা হয় যে যখন শনিদেবের দৃষ্টি পড়ে তখন মানুষের জীবনে সমস্যার শেষ থাকে না, তাই শনিদেবের পূজাতে সর্বদাই নিজের চোখ দুটিকে নামিয়ে রাখুন, কখনোই শনিদেবের চোখে চোখ রেখে পূজা করবেন না।

শনিদেব কে প্রসন্ন করে কৃপা দৃষ্টি লাভ করুন এই পদ্ধতিতে

৩) তামার থালা-বাসন ব্যবহার নয়:

পূজার সময় নৈবেদ্য নিবেদন করার ক্ষেত্রে বিভিন্ন রকমের পাত্রের প্রয়োজন হয়। তবে এখানে দেব-দেবী দের পূজা করার সময় তামার পাত্রকে সবচেয়ে শুভ বলে মনে করা হয়, তবে শনিদেবের পূজার বিষয়টা একেবারেই আলাদা। এখানে কিন্তু ভুল করেও তামার কোন পাত্র ব্যবহার করা যাবে না।

মনে করা হয় যে তামার সম্পর্ক রয়েছে সূর্য দেবের সঙ্গে, তাই শনিদেব সূর্যের পুত্র যেহেতু, আর দুজনের মধ্যে শত্রুতা রয়েছে চরমে, তাই শনিদেবের জন্য লোহার পাত্র ব্যবহার করাই সবথেকে ভালো বলে মনে করা হয় শাস্ত্র অনুসারে।

৪) নিজের বস্ত্রের উপরে রাখুন বিশেষ খেয়াল:

পূজায় বসতে গেলে ব্যক্তিদের সুন্দর, শুদ্ধ, পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন বস্ত্র পরিধান করতে হয়। সেটা আর নতুন কোন বিষয় নয়, বিশ্বাস করা হয় যে শনিদেবের পূজার সময় ব্যক্তিকে কালো অথবা নীল রঙের পোশাক পরা উচিত। অনেক রং অনেক শুভ অশুভ ফলাফলের কারণ হতে পারে। সেই কারণে এমনটা করলে শুভ ফল পাওয়া যায় বলে জানা যায়।

তবে শনিদেবের পূজার সময় লাল রঙের পোশাক পরা কখনোই উচিত নয়। এর ফলে আপনার উপরে শনিদেবের রাগ হতে পারে। আপনি নিশ্চয়ই চাইবেন না যে, ভক্তি ভরে পূজা করার পরে শনিদেব আপনার উপরে রেগে থাকুন, তাই ভুলেও কখনোই এমনটা করবেন না।

৫) শনিদেবের সামনে জ্বলন্ত প্রদীপ রাখা যাবে না:

প্রতিটি পূজা অর্চনায় প্রদীপ ধুপ খুবই গুরুত্বপূর্ণ জিনিস, পূজার সময় সকল দেব দেবী দের সামনে প্রদীপ জ্বালানো শুভ বলে মনে করা হলেও শনিদেবের সামনে প্রদীপ জ্বালিয়ে রাখার নিষেধাজ্ঞা রয়েছে সম্পূর্ণরূপে।

বিশ্বাস করা হয় যে, শনিদেবের মূর্তির সামনে প্রদীপ জ্বালিয়ে রাখার বদলে তা অশ্বত্থ গাছের নিচে জ্বালিয়ে রাখা দরকার। এর ফলে শনিদেব খুব তাড়াতাড়ি ভক্তের উপরে প্রসন্ন হন আর মনের ইচ্ছা পূরণ করেন।

শনির প্রকোপ থেকে বাঁচতে কি করবেন জেনে নিন

৬) নীলকন্ঠ ফুল অর্পণ করুন:

প্রতিটি দেব-দেবীদের মধ্যে পছন্দের ফুল, পছন্দের ভোগ থাকে, তেমনি শনিদেবের পূজার ক্ষেত্রে নীল রঙের ফুল খুবই প্রয়োজনীয়। কেননা শনিদেব নীল রঙের ফুল খুবই পছন্দ করেন। সেক্ষেত্রে নীলকন্ঠ ফুল অর্পণ করতে পারেন এই পূজাতে। আবার অনেকেই নীল আকন্দ দিয়েও থাকেন শনিদেবের পূজায়।

শনিবার মানে কিন্তু শনিদেবের পূজা নিয়ে তোড় জোড় শুরু হয়ে যায় বাঙালি পরিবারে। সকলে উপবাস পালন করেন, ব্রত পালন করেন। এই দিন শনিদেবকে সন্তুষ্ট করার জন্য নিজেকে সম্পূর্ণ রূপে উৎসর্গ করে দেন। সংসারে সুখ, শান্তি, সমৃদ্ধি বজায় থাকার পাশাপাশি জীবনে যেন কোনো রকম অসুবিধা না আসে, সমস্যা না আসে, সেই জন্য শনিদেবের কাছে প্রার্থনা করা হয়।

শনিদেবের প্রসাদ খাওয়ার জন্যও রয়েছে আরেকটি রীতি, যা কিনা বাড়ির মধ্যে প্রবেশ করানো নিষেধ, বাড়ির বাইরে থেকেই প্রসাদ গ্রহণ করে পূজার থালা পরিষ্কার করে তবেই সেটা ঘরের মধ্যে প্রবেশ করাতে হয়। শনিদেব কে সন্তুষ্ট করার জন্য, প্রসন্ন করার জন্য সামান্য কিছু রীতি মেনে চললে আপনি সহজেই সন্তুষ্ট করতে পারবেন।

শনিদেবের পুজাতে এই বিষয় গুলির খেয়াল রাখলে পাবেন লাভ

তবে এমন অনেক বিষয় রয়েছে যেগুলি সামান্য ভুল হলেও তার ক্ষেত্রেও শনিদেব কিন্তু আপনার উপরে অসন্তুষ্ট হয়ে যেতে পারেন, আর সেই বিষয় গুলি আপনাকে বিশেষ ভাবে খেয়াল রাখতে হবে, তাই না !

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *