Maha Shivratri 2024: দুঃখ কষ্ট দূর করতে মহা শিবরাত্রিতে বাড়িতে আনুন এই জিনিসগুলি

প্রতিটি পূজা পার্বণে ভক্তির সাথে যদি কোন কিছু চাওয়া যায় তাহলে সেটি পূরণ করেন ঈশ্বর। তেমনি মহা শিবরাত্রিতে এমন কিছু জিনিস রয়েছে যেগুলি বাড়িতে নিয়ে আসলে সংসারের সকল দুঃখ-কষ্ট দূর হয়ে গিয়ে আনন্দ, সুখ, শান্তি ও সমৃদ্ধিতে ভরে উঠবে।

প্রতিবছর ফাল্গুন মাসের কৃষ্ণপক্ষের চতুর্দশী তিথিতে মহা শিবরাত্রি পালিত হয় সমগ্র জায়গায়। এই শুভদিনে শিবের উপাসনা করলে সমস্ত দুঃখ-কষ্ট দূর হয় বলে জানা যায়।

তিনি অল্পতেই সন্তুষ্ট বলেই সকলেই তার পূজার আয়োজন করে থাকেন। শিব এর অপর নাম ভোলানাথ, সামান্য জল, ভাং, ধুতরা ফুল, বেল পাতাতেই সন্তুষ্ট তিনি।

মহা শিবরাত্রি: দুঃখ কষ্ট দূর করতে মহা শিবরাত্রিতে বাড়িতে আনুন এই জিনিসগুলি
মহা শিবরাত্রি: দুঃখ কষ্ট দূর করতে মহা শিবরাত্রিতে বাড়িতে আনুন এই জিনিসগুলি

এছাড়াও কিছু কিছু জিনিস রয়েছে যা শিবের অত্যন্ত প্রিয়। সমস্ত জিনিস মহা শিবরাত্রি নিয়ে সমস্ত সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যায় বলে শাস্ত্র অনুসারে জানা যায়, আর এগুলির প্রভাবে সংসারে আর্থিক উন্নতি আসে।

তো চলুন তাহলে জেনে নেওয়া যাক, এমন শুভ দিনে বাড়িতে কোন জিনিস গুলি আনবেন, যে জিনিস গুলির জন্য সকল দুঃখ-কষ্ট দূর হয়ে যেতে পারে:

১. একমুখী রুদ্রাক্ষ:

শিব এর স্বরূপ হিসেবে একমুখী রুদ্রাক্ষ খুবই গুরুত্বপূর্ণ। হিন্দু ধর্ম অনুসারে একমুখী রুদ্রাক্ষকে শান্তি ও সমৃদ্ধির প্রতীক বলে মনে করা হয়। বাড়িতে একমুখী রুদ্রাক্ষ কেনার ইচ্ছা থাকলে এই মহা শিবরাত্রির শুভ দিনটাকে বেছে নিতে পারেন, এই তিথি কিন্তু সর্বশ্রেষ্ঠ।

এই রুদ্রাক্ষ ধারণ করলে সমস্ত সংকট কেটে যায় বলে জানা যায়। এছাড়াও লকারে রাখতে পারেন একমুখী রুদ্রাক্ষ। এর প্রভাবে ব্যক্তির জীবনে কখনো কোন অর্থের অভাব হবে না বলে জানা যায়।

২. রুপোর তৈরি নন্দী:

নন্দী হল শিবের বাহন, পুরান অনুযায়ী নন্দী, ভৃঙ্গি শিব এর সাথে একসাথে সংযুক্ত, আর প্রতিটি শিব মন্দিরে প্রবেশের মুখে নন্দীর মূর্তি থাকে। এটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এই মহা শিবরাত্রির দিনেও নন্দীরও পূজা করা হয়।

জীবনে যদি অর্থের অভাব থাকে তাহলে মহা শিবরাত্রির দিনে রুপোর তৈরি নন্দী বাড়িতে আনুন। পূজার পর বাড়ির লকারে নন্দীর মূর্তি রেখে দিন। এর প্রভাব -এ ধীরে ধীরে আপনার সকল আর্থিক পরিস্থিতি উন্নত হতে পারে বলে ধারণা করা হয়।

৩. পারদ শিবলিঙ্গ:

শিব ঠাকুরের মূর্তি হিসেবে শিবলিঙ্গ অনেক জায়গায় প্রতিষ্ঠিত। সেখানে শিবলিঙ্গের মাধ্যমে শিবের উপাসনা করা হয়। আর এই মহা শিবরাত্রির শুভ তিথিতে বাড়িতে যদি পারদ শিবলিঙ্গ স্থাপন করতে পারেন তাহলে এর গুরুত্ব রয়েছে অসীম।

পারদ শিবলিঙ্গ বাড়িতে রাখলে গ্রহ দোষ ও বাস্তু দোষ থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। শিবরাত্রির এই শুভ তিথিতে বাড়িতে পারদ শিবলিঙ্গ এনে স্থাপন করতে পারেন। তবে নিয়মিত কিন্তু এই শিবলিঙ্গের পুজো করতে হবে। তার পাশাপাশি শিব মন্ত্র জপ করাটা জরুরী।

৪. রত্নের শিব লিঙ্গ:

মহা শিবরাত্রি উপলক্ষে সকল জায়গায় শিব ও দুর্গার পূজা করা হয়। তবে এমন শুভ দিন বছরে একবারই আসে। মহা শিবরাত্রির দিনে বাড়িতে বিভিন্ন রত্ন খচিত শিবলিঙ্গ আনতে পারেন। গ্রহ দোষ কাটানোর জন্য এই রত্নের শিবলিঙ্গ বাড়িতে স্থাপন করা খুবই শুভ।

কোন ব্যক্তির কোষ্টিতে গ্রহ দোষ যদি থাকে তাহলে এর ফলে কেটে যায়। মন্দিরে এই শিবলিঙ্গ প্রতিষ্ঠা করে মহা শিবরাত্রির দিনে এই পূজা করুন। তারপরে প্রতিদিন রত্নের শিবলিঙ্গের পূজা করুন, এই উপায়ে গ্রহ দোষ দূর হয়।

৫. তামার ঘট:

গৃহস্থ বাড়ির পূজা ঘরে তামার ঘট একটি অতি প্রয়োজনীয় জিনিস। তবে এই তামার ঘট মহা শিবরাত্রির শুভ তিথিতে যদি বাড়িতে নিয়ে আসেন, তাহলে আরো বেশি শুভ ফল পাওয়া যায়।

মহা শিবরাত্রি তিথিতে তামার ঘট দিয়ে শিবের পূজা করে তাকে প্রসন্ন করা যেতে পারে। পারিবারিক কলহ, বিবাদ, বেঁধে থাকলে সেই পরিবারে তামার ঘট রাখা উচিত।

এর ফলে কলহ, বিবাদ এর সমাপ্তি ঘটে। মহা শিবরাত্রির শুভদিনে তামার ঘট কিনে বাড়িতে আনতে পারেন। এর ফলে শুভ ফলাফল লাভ করবেন, আর তার প্রভাব দেখতে পাবেন নিজের চোখেই।

৬. মহা মৃত্যুঞ্জয় যন্ত্র:

দেবাদীদেব মহাদেবের সাথে অনেক পৌরানিক কাহিনী, বিশ্বাস, জড়িত। প্রচলিত বিশ্বাস অনুযায়ী যে পরিবারে নিয়মিত মহা মৃত্যুঞ্জয় যন্ত্রের পূজা করা হয় সেখানে কেউ কখনো অসুস্থ হয় না বলে জানা যায়। রোগভোগ, অর্থের অভাব, থেকে সেই পরিবারের সদস্যরা সর্বদাই মুক্ত থাকেন।

এই শুভ তিথিতে বাড়িতে মহা মৃত্যুঞ্জয় যন্ত্র আনতে পারেন আর এটি বাড়ির ঠাকুর ঘরের রাখুন এবং প্রতিদিন সূর্য উদয়ের সময় এর পূজা করুন। এর ফলে পরিবারের সুখ, শান্তি, সমৃদ্ধি বজায় থাকবে আজীবন

৭. রুপোর সাপ:

মহাদেবের গলায় থাকে সাপ, সেই অনুযায়ী মহা শিবরাত্রির এই শুভদিনে বাড়িতে রুপোর তৈরি ছোট সাপ নিয়ে আসতে পারেন। যেটি ঠাকুর ঘরে প্রতিষ্ঠিত করতে পারেন।

এর ফলে শিবের আশীর্বাদ সর্বদাই আপনার এবং আপনার পরিবারের সকল সদস্যের উপরে বজায় থাকবে সারা জীবন। তাই আপনার সাধ্যমত রূপোর সাপ তৈরি করে নিয়ে আসতে পারেন ঘরে এই শুভদিনে।

⭐ সংসারের সুখ, শান্তি, সমৃদ্ধি বজায় রাখতে কত কিছুই না করতে হয়। তবে এই মহা শিবরাত্রি তে যদি এই জিনিসগুলি বাড়িতে নিয়ে আসেন, তাহলে অনেকখানি পূণ্য অর্জন করার পাশাপাশি সংসারের সকল বাধা বিপদ, অর্থের অভাব সবকিছু নিমিষেই কেটে যাবে।

তবে অবশ্যই মনে থাকতে হবে অনেকখানি ভক্তি, এই ভক্তিতেই থাকে অনেকখানি শক্তি। ভক্তি ও নিষ্ঠা অনুসারে যদি এগুলি করা যায় তাহলে তার শুভ ফল পেতে বেশিদিন সময় লাগবে না।

Leave a Comment