Shani Puja 2024: শনিদেবের পুজাতে এই বিষয় গুলির খেয়াল রাখলে পাবেন লাভ

শনিদেব, গ্রহরাজ, বড় ঠাকুর যে নামেই ডেকে থাকেন না কেন তিনি হলেন ন্যায়ের দেবতা। প্রতিটি মানুষের ভালো-মন্দ কাজের উপরে নির্ভর করে তার ফলাফল প্রদান করেন তিনি। ভাল কাজ করলে আপনি ভাল ফল পাবেনই, আর যদি খারাপ কাজ করেন তাহলে তার ফল তো আপনাকে ভোগ করতেই হবে, তাই না ! কোন মানুষ কখনোই চাইবেন না শনির প্রকোপ তার উপরে পড়ুক এবং শনিদেবের কৃপাদৃষ্টি পাওয়ার জন্য অনেক কিছুই করে থাকেন।

ভক্তি ভরে সমস্ত নিয়ম কানুন মেনে যদি শনিদেবের উপাসনা করা যায়, তাকে সন্তুষ্ট করা যায়, তাহলে তার কৃপা দৃষ্টি আপনার জীবনে পড়ে আপনার জীবন ফুলে ফেঁপে উঠতে বেশিদিন সময় নেবে না।

প্রতিটি পূজায় বেশ কিছু নিয়ম থাকে, এক একটি পূজার নিয়ম এক এক রকম, তাই সেই নিয়ম কখনই ভুলে যাওয়ার বিষয় নয়। শনিবার শনিদেবের পূজার সঙ্গে সঙ্গে বেশ কিছু সাবধানতা অবলম্বন করতে হয়। এই সাবধানতা অবলম্বন করতেই হবে, যার ফলে আপনি যেন শনিদেবের কাছ থেকে শুভ ফল লাভ করতে পারেন।

শনিদেবের পুজাতে এই বিষয় গুলির খেয়াল রাখলে পাবেন লাভ
শনিদেবের পুজাতে এই বিষয় গুলির খেয়াল রাখলে পাবেন লাভ

তিনি যেমন সামান্য কিছু ভোগ নৈবেদ্য তে সন্তুষ্ট হন, তেমনি এমন কিছু বিধি নিষেধ নিয়ম রয়েছে সেগুলি পালন করলেও শনিদেব কে সহজেই সন্তুষ্ট করতে পারবেন।

তো চলুন তাহলে জেনে নেওয়া যাক, শনিদেবের পূজার সময় আপনাকে কোন কোন সাবধানতা গুলি অবলম্বন করতে হবে:

১) লোহার পাত্রে নৈবেদ্য অর্পণ:

আমরা সকলেই জানি যে, প্রতিটি পূজা পার্বণে তামার অথবা পিতলের থালাবাসন খুবই প্রযোজ্য। তবে গ্রহরাজ অথবা বড় ঠাকুরের পূজার ক্ষেত্রে এটা একেবারেই নিষেধ। কেননা তামার সাথে সূর্যদেবের সম্পর্ক রয়েছে। আর সূর্য শনিদেবের শত্রু বলে মনে করা হয়।

সেই কারণে এই দিন শনিদেবের পূজার ক্ষেত্রে লোহার বাসনপত্র ব্যবহার করতে হবে। তবেই তিনি সন্তুষ্ট হবেন ভুলেও কিন্তু তামার জিনিসপত্র ব্যবহার করা যাবে না।

শনিবার ভুলেও এই কাজগুলি করলে জীবনে নেমে আসবে অমঙ্গল

২) পূজার সময় কোন দিকে মুখ করে বসবেন:

প্রতিটি পূজার ক্ষেত্রে ভক্তদের কোন না কোন এক দিকে মুখ করে বসতে হয়। তেমনি গ্রহরাজ / শনিদেবের পূজার সময় পশ্চিম দিকে মুখ করে বসতে হয়, পশ্চিম দিকের স্বামী বলে শনিদেবকে মনে করা হয়, তাই পূজার ক্ষেত্রেও পশ্চিম দিকে মুখ করে থাকতে হয়, এর ফলে তিনি সন্তুষ্ট হন।

৪) আড়াআড়ি বসতে হবে:

শনিদেবের পূজার সময় একেবারে শনিদেবের সামনাসামনি কখনোই বসা যাবে না এবং শনিদেবের মুখোমুখি বসে সামনা সামনি চেয়ে কখনোই পূজা-অর্চনা করা যাবে না, এক্ষেত্রে একটু পাশে বসে তবে কিন্তু তাকে পূজা করতে হবে।

৫) এই ভোগ নিবেদন করুন:

শনি দেব কে সন্তুষ্ট করতে গেলে তেল, খিচুড়ি এবং গুড় নিবেদন করতে হবে। এই ভোগে শনিদেব অত্যন্ত সন্তুষ্ট হন। ভোগের মধ্যে এই জিনিসগুলি রাখতে একেবারেই ভুলবেন না কিন্তু।

শনির প্রকোপ থেকে বাঁচতে কি করবেন জেনে নিন

৬) শনি মন্ত্র জপ করুন:

প্রতিটি পূজায় সেই পূজার মন্ত্র জপ করতে হয় অর্থাৎ যে দেব দেবীর পূজা করছেন সেই দেবদেবীর মন্ত্র জপ করতে হয়। তেমনি শনি মন্ত্র জপ করতে হবে আপনার শনিদেবের পূজার সময়, এর ফলে আপনার জীবনে ইতিবাচকতা এবং সমৃদ্ধি আসতে পারে।

যারা এই মন্ত্রগুলি অত্যন্ত নিষ্ঠার সাথে ভক্তি ভরে জপ করেন তাদের উপরে শনিদেব আশীর্বাদ বর্ষণ করেন। এই মন্ত্র গুলি আপনাকে অযথা উদ্বেগ এবং ভয়-ভীতি থেকেও মুক্তি দেবে।

৭) অন্যের প্রতি সদয় হওয়া:

নিজের যতই ধন সম্পদ থাকুক না কেন, নিজের মধ্যে কখনোই অহংকার বোধ আনা উচিত নয়। এটা কোন ভাল মানুষের পরিচয় নয়, তেমনি শনিদেবকে যদি সন্তুষ্ট করতেই চান, তার জন্য একটি অন্যতম উপায় হল অন্যের প্রতি সদয় হওয়া, সহৃদয় ব্যক্তিদের তিনি আশীর্বাদ করেন এবং পৃথিবীতে সকল মানুষই তাকে ভালবাসে।

যে ব্যাক্তি কাউকে হিংসা করে না, আঘাত করে না,  তার উপরে ঈশ্বরের আশীর্বাদ সর্বদাই থাকে। আবার অন্যদিকে যে ব্যক্তি অন্যকে হিংসা করে, অন্যকে আঘাত করে আনন্দ পায়, তাকে শনিদেব কখনোই আশীর্বাদ করেন না।

তিনি কিন্তু ন্যায় বিচারের বিচারক, তাই আপনি যদি অন্যের প্রতি খারাপ ব্যবহার করেন, তবে তার খারাপ ফলাফল আপনাকে ভোগ করতেই হবে। সেই কারণে সকল মানুষের প্রতি এবং প্রাণীদের প্রতি সদয় হওয়ার চেষ্টা করুন এবং ভালো ব্যবহার করুন।

শনিদেব কে প্রসন্ন করে কৃপা দৃষ্টি লাভ করুন এই পদ্ধতিতে

৮) সততা এবং ভালো উদ্দেশ্যসহ কঠোর পরিশ্রম:

কথায় আছে কঠোর পরিশ্রম কখনোই বিফলে যায় না, আপনি যদি মন থেকে সততার সাথে কোন ভালো কাজের উদ্দেশ্যে কঠোর পরিশ্রম করে থাকেন, তাহলে ঈশ্বরই কিন্তু আপনার সহযোগিতা করেন।

ভগবান শনি হলেন ন্যায় ও কর্মের দেবতা, এবং যে ব্যাক্তি সৎ ভাবে সংকল্প নিয়ে এবং নিষ্ঠার সাথে কঠোর পরিশ্রম করেন, সেই ব্যক্তি সর্বদাই ভগবান শনির আশীর্বাদ লাভ করেন। এমনকি জীবনে কোন রকম সমস্যার মুখোমুখি হবেন না সেই ব্যাক্তি।

এর কারণ হলো ভগবান শনিদেব কোন ব্যক্তিকে তার কর্ম অনুসারে আশীর্বাদ প্রদান করেন। সুতরাং যদি আপনি সততা, সংকল্প এবং নিষ্ঠার সাথে কঠোর পরিশ্রম করে থাকেন এবং সেই পরিশ্রমের উদ্দেশ্য যদি ভালো হয় তাহলে আপনি সর্বদাই তার আশীর্বাদ পাবেন।

৯) কাল ভৈরব এর পূজা করুন:

কালভৈরব হল ভগবান শিবের একটি রূপ। আর তার উপাসনা করলে আপনি শনি দেবকেও সন্তুষ্ট করতে পারবেন। হিন্দু পুরান মতে কালভৈরব কাল ও সময়ের শাসক, তাই আপনার সময়কে পরিবর্তিত করার জন্য শনিদেবের পূজার পাশাপাশি কালভৈরবের পূজা করতে পারেন।

১০) যজ্ঞ করুন:

হোম, যজ্ঞ, পূজা অর্চনার একটি অঙ্গ। যজ্ঞের আসল অর্থ হল পূজা, অভ্যাস, আত্মসমর্পণ, কঠোর নীতি নিষ্ঠা, নিষ্ঠা, পবিত্রতা, উৎসর্গ। যে ব্যাক্তি শুদ্ধ আত্মা এবং মহৎ উদ্দেশ্য নিয়ে যজ্ঞ করে থাকেন, সেই ব্যক্তি সর্বদাই শনিদেবের আশীর্বাদ লাভ করেন।

এর কারণ হলো যারা পবিত্রতা এবং কঠোরতার সাথে আধ্যাত্মিকতা এবং জ্ঞানের পথ অনুসরণ করেন, তাদের প্রতি তিনি সন্তুষ্ট হন। আর শনিদেবকে প্রসন্ন করার জন্য যজ্ঞ হল একটি সুন্দর উপায়।

শনি দেবের পূজায় যে ভুলগুলি করলে বিপদে পড়তে পারেন

১১) অশ্বত্থ গাছের পূজা করুন:

অশ্বত্থ গাছকে শনিদেবের প্রিয় হিসেবে মনে করা হয়, যারা শনিদেবের আশীর্বাদ পেতে চান তারা অশ্বত্থ গাছের উপাসনা করতে পারেন। গাছের নিচে সরিষার তেল দিয়ে প্রদীপ জ্বালানো উচিত এবং আশীর্বাদ পেতে শনি মন্ত্র জপ করুন।

১২) সরষে এবং আরো অন্যান্য কালো শস্য দান করুন:

কালো এবং নীল রং শনিদেবের প্রিয় রং, কালো যে কোনো বীজ অথবা শস্য যেমন সরষে বীজ এবং আরো অন্যান্য কালো বীজ শনিদেবের প্রিয়, সেই জন্য বলা হয় তিনি সরিষার তেলও পছন্দ করেন এবং তাই কালো সরিষার বীজ এবং অন্যান্য কালো শস্য দান করলে তিনি সন্তুষ্ট হতে পারেন। যারা অসহায় ও অভাবী তাদেরকে সরিষার তেল দান করতে পারেন। এর ফলে পুণ্য অর্জন করার পাশাপাশি শনিদেব ও সন্তুষ্ট হবেন আপনার উপরে।

১৩) জীবন থেকে সমস্যা দূর করুন:

এমনও হতে পারে আমাদের জীবনযাত্রার সাথে এমন অনেক বিষয় জড়িয়ে রয়েছে, যেগুলির কারণে শনিদেব অসন্তুষ্ট হয়ে থাকেন। বিভিন্ন জিনিসপত্র এমনকি অনেক বিষয় রয়েছে যেগুলোর জীবনে কোন রকম প্রয়োজনই নেই।

আর অযথা সেই জিনিস গুলি ধরে রাখলে ভগবান শনির আশীর্বাদ নাও পেতে পারেন আপনি। আপনি প্রচুর নেতিবাচক চিন্তাধারা বেষ্টিত হয়ে থাকলে আপনার জীবন থেকে এগুলো বাদ দিন, না হলে আপনার উপাসনা এবং ভক্তি বিফলে যেতে পারে।

শনিবার ভুলেও এই কাজগুলি করলে জীবনে নেমে আসবে অমঙ্গল

১৪) সাধারণ ও শান্তিপূর্ণ জীবন:

যতই আপনি অনেক ধনসম্পত্তির মালিক হন না কেন, সর্বদাই চেষ্টা করুন সাধারণ ও শান্তিপূর্ণ জীবন কাটানোর। যারা অল্পেতে সন্তুষ্ট হন এবং মনে কোন লোভ থাকে না তারা সর্বদাই শান্তিপূর্ণ জীবন যাপন করতে পারেন। আপনি যদি ভগবান শনিকে সন্তুষ্ট করতে চান, তাহলে নিজেকে মুক্ত করতে এই বিষয় গুলি থেকে নিজেকে সরিয়ে রাখুন।

যা কিছু আপনি পেয়েছেন তা নিয়েই সুখে থাকুন অযথা অন্য কিছুর পিছনে ছুটলে যা কিছু আপনার কাছে রয়েছে সেগুলিও ভোগ করতে, উপভোগ করতে ভুলে যাবেন। আর মনের মধ্যে এই যে অস্বস্তি, অশান্তি, লোভ আছে যেগুলোর কারণে শনিদেব আপনার উপরে অসন্তুষ্ট হতে পারেন।

শনি দেব কে সন্তুষ্ট করতে আপনি এই নিয়ম গুলি খুবই সুন্দর ভাবে পালন করে দেখতে পারেন। সামান্য বিষয় হলেও এগুলি আপনার জীবনে আনবে আমূল পরিবর্তন। শনিদেব যেহেতু ন্যায় বিচারক তাই আপনার কাজের উপরে নির্ভর করে তবেই কিন্তু আপনাকে আশীর্বাদ করবেন, আর আপনার উপরে সন্তুষ্ট হবেন। যার ফলে জীবনে আসবে অপার শান্তি, সৌভাগ্য আর সমৃদ্ধি।

Leave a Comment