Makar Sankranti 2024: মকর সংক্রান্তির এই অজানা কথাগুলি জানলে ভালো লাগবে

মকর সংক্রান্তি (Makar Sankranti) অথবা পৌষ সংক্রান্তি (Poush Sankranti) বা বলা যেতে পারে পৌষ পার্বণ, দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে ধুমধাম করে পালন করা হয়। এর জন্য তোড়জোড় শুরু হয়ে যায় অনেকদিন আগে থেকেই। নতুন শস্য ঘরে ওঠার আনন্দ আর শীতের আমেজ কাটিয়ে বসন্ত কে আগমন জানানো, সবকিছু মিলিয়ে এই উৎসব হয়ে ওঠে আনন্দ মুখর। মকর সংক্রান্তি (Makar Sankranti) থেকে সূর্যের উত্তরায়ন শুরু হয়। এদিন থেকে রবিশস্য ঘরে তোলার উৎসব হিসেবে পালন করা হয় সমস্ত জায়গায়।

Makar Sankranti: মকর সংক্রান্তির এই অজানা কথাগুলি জানলে ভালো লাগবে
Makar Sankranti: মকর সংক্রান্তির এই অজানা কথাগুলি জানলে ভালো লাগবে

দেশের বেশিরভাগ রাজ্যে মকর সংক্রান্তি (Makar Sankranti) অথবা পৌষ সংক্রান্তি (Poush Sankranti) কৃষি উৎসব হিসেবে পালন করা হয়। মকর সংক্রান্তি (Makar Sankranti) থেকে যেহেতু সূর্যের উত্তরায়ন শুরু হয়ে যায়, তাই এই দিনটি বসন্ত ঋতুকে স্বাগত জানানোর দিন হিসেবে পালন করে থাকেন দেশের বেশিরভাগ মানুষ।

আর আমরা আগেই জেনেছি মকর সংক্রান্তি থেকে শুরু হয় পরবর্তী ছয় মাস পর্যন্ত সূর্যের উত্তরায়ন। তারপর শুরু হবে সূর্যের দক্ষিণায়ন। উত্তরায়নে উত্তর গোলার্ধের কাছাকাছি আসে সূর্য। আমাদের দেশের বিভিন্ন রাজ্যে মকর সংক্রান্তি (Makar Sankranti) পালিত হয় পিঠে, পুলি, পায়েস এই সমস্ত রান্নাবান্নার মধ্যে দিয়ে।

তবে এর মধ্যে রয়েছে আরো অনেক কিছু জানা অজানা রহস্য। যারা বাইরে কাজের জন্য যান তারাও কিন্তু এই উৎসবের দিন ঘরে ফিরে আসেন, আবার অনেক জায়গায় বনফায়ার অথবা ঘুড়ি ওড়ানোর প্রতিযোগিতা হয় মকর সংক্রান্তির উৎসব উপলক্ষে।

তবে মকর সংক্রান্তির মূল প্রথা হলো গঙ্গা স্নান, অন্নদান, এবং মকর সংক্রান্তি (Makar Sankranti) উপলক্ষে বিশেষ খাবার দাবার তৈরি করা। এর পাশাপাশি রয়েছে খিচুড়ি, পিঠে, পুলি, তিলের মিষ্টি, গুড় ও আরো অন্যান্য বিভিন্ন নানা নামের পিঠে পুলি দিয়ে এই উৎসব উদযাপিত হয়।

তবে ওই যে বললাম, মকর সংক্রান্তি নিয়ে রয়েছে অনেক জানা অজানা রহস্য, সেই সম্পর্কে এমন কিছু তথ্য সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক:

১) রবিশস্য:

শীতকালীন রবিশস্য ঘরে তোলার উৎসব হিসেবে কৃষি প্রধান আমাদের এই দেশে মকর সংক্রান্তি (Makar Sankranti) পালন করা হয় খুবই সুন্দরভাবে। রবিশস্যের পাশাপাশি সেই নতুন চাল দিয়ে তৈরি পিঠে, পুলি, পায়েস। যা কিনা এই মকর সংক্রান্তি (Makar Sankranti) অথবা পৌষ সংক্রান্তি (Poush Sankranti)র সাথে খুবই সুন্দর ভাবে ওতপ্রোতভাবে জড়িত।

২) সূর্যদেবকে ধন্যবাদ ও পূজা:

ভালো শস্য উপহার দেওয়ার জন্য সূর্যদেবকে ধন্যবাদ জানিয়ে আগামী বছরে ভালো শস্যের জন্য প্রার্থনা করা হয়। তার পাশাপাশি সূর্যদেবের পূজা করা হয় এই মকর সংক্রান্তি (Makar Sankranti) তিথিতে।

৩) দিন বড় ও রাত ছোট:

শাস্ত্র অনুসারে মকর রাশিতে প্রবেশ করে সূর্য, আর এদিন থেকেই শীতের বিদায় ঘন্টা বেজে যায়, আর বসন্তের আগমন হয়, তাই দিন বড় ও রাত ছোট হতে শুরু করে।

৪) পাহাড়ের মাথায় সূর্যের প্রথম আলো:

কেরালায় এই উৎসব মকরাভিলাক্কু নামে পরিচিত। শবরীমালা পাহাড়ের মাথায় সূর্যের প্রথম আলো পড়লে তা দেখার জন্য হাজির হন বহু পুন্যার্থী ও ভক্তগণ।

৫) বিভিন্ন রাজ্যে, মকর সংক্রান্তি বিভিন্ন নামে পরিচিত:

গুজরাট এবং রাজস্থানে মকর সংক্রান্তি (Makar Sankranti) পরিচিত উত্তরায়ন নামে এবং হরিয়ানা ও পাঞ্জাবে এটি  মাঘী নামে পরিচিত। তামিলনাড়ুতে মকর সংক্রান্তি পোঙ্গাল নামে পরিচিত সকলের কাছে। আর এই রাজ্যে এই মকর সংক্রান্তি অথবা পোঙ্গাল উৎসবটি হল সবচেয়ে বড় উৎসব।

৬) মকর সংক্রান্তিতে লক্ষ্মী পূজা:

পশ্চিমবঙ্গ এবং পূর্ব ভারতের আরো অন্যান্য রাজ্য গুলিতে এই মকর সংক্রান্তির দিন পালিত হয় পৌষ সংক্রান্তি (Poush Sankranti)। এই দিন লক্ষ্মীপূজাও করে থাকেন অনেকেই। তার পাশাপাশি চালের গুঁড়ো দিয়ে লক্ষ্মী দেবীর আলপনা ও পায়ের চিহ্ন আঁকা হয়।

৭) ঘুড়ি ওড়ানো:

অনেক রাজ্য আবার এই দিন উপলক্ষে বিভিন্ন রঙের ঘুড়ি ওড়ানো হয়। তার সাথে সাথে আত্মীয়-স্বজন, বন্ধু-বান্ধব, পাড়া-প্রতিবেশী দের নিয়ে ঘুড়ি ওড়ানোর উৎসব পালন করে থাকেন অনেকেই। এর পাশাপাশি সন্ধ্যের সময় এই দিন আকাশ প্রদীপও জ্বালানো হয়।

৮) বিভিন্ন ধরনের মিষ্টি খাবার তৈরি:

মকর সংক্রান্তি (Makar Sankranti) উপলক্ষে নানা ধরনের খাবার তৈরির প্রথা প্রচলিত আছে বিভিন্ন রাজ্যে বিভিন্ন রকম ভাবে। তিল বাদাম ও গুড় দিয়ে নানা ধরনের মিষ্টি তৈরি করা হয়। ক্ষীর ও খিচুড়ি তৈরি করেন অনেক বাড়িতে, বেশিরভাগ বাড়িতে পিঠে, পুলি, পায়েস তৈরি করার প্রচলন রয়েছে।

৯) বাড়ি-ঘর সাজানো:

মকর সংক্রান্তির দিন সকলেই নিজেদের বাড়ি-ঘর পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন করে সুন্দর করে সাজিয়ে রাখেন এবং ফুল ও আম পাতা দিয়ে বাড়ির প্রধান সদর দরজা সাজানো হয়। দরজার সামনে আলপনা দেওয়া হয় চালের গুঁড়ো দিয়ে, এরপরে পাশে আঁকা হয় মা লক্ষ্মীর পায়ের ছাপ।

এছাড়াও মকর সংক্রান্তি (Makar Sankranti) উপলক্ষে দান করা, গঙ্গাস্নান করা, সূর্যদেবকে পূজা করা, পিঠে, পুলির আয়োজন করা, পরিবার পরিজনের সাথে সময় কাটানোর পাশাপাশি আনন্দ উৎসবে মেতে ওঠার জন্য বিভিন্ন ধরনের মিষ্টি দিয়ে মিষ্টি মুখ চলে সকলের মধ্যে।

এই দিন নতুন শস্য ঘরে ওঠে এবং বসন্তকে আগমন জানানোর জন্য মকর সংক্রান্তি কে আলাদাভাবে চিহ্নিত করা হয়। ঈশ্বরকে সবকিছু নিবেদন করার পরেই তবে গ্রহণ করা হয় কোন খাবার।

মকর সংক্রান্তি তে সূর্যের উত্তরায়ণ শুরু হয় বলেই এই সময় বিভিন্ন ধরনের শুভ ও মাঙ্গলিক কাজ গুলি সম্পন্ন করা হয়ে থাকে। প্রতিটি বাড়ি থেকে এই দিনটির অপেক্ষায় থাকেন, কেননা এই দিনের পর থেকেই শুরু হয়ে যায় সমস্ত রকম শুভ কাজ সম্পন্ন করার শুভ তিথি।

মকর সংক্রান্তির দিন পরিবার ও কাছের প্রিয় মানুষজন দের সঙ্গে একসঙ্গে মিলিত হয়ে মিষ্টিমুখ করুন, পারিবারিকশান্তি, ঝগড়া, ঝামেলা, দূর হয়ে গিয়ে সম্পর্কে আসবে অটুট বন্ধন।

মকর সংক্রান্তি (Makar Sankranti) একটি পবিত্র তিথি, এই তিথিতে আপনি যত বেশি পুণ্য অর্জন করতে পারবেন ততই কিন্তু আপনার জীবনে আসবে সুখ, শান্তি, সমৃদ্ধি এবং মৃত্যুর পর স্বর্গ লাভের ক্ষেত্রেও আপনি এই পুণ্য অর্জন কে সাথে পেতে পারেন।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *